আপনার চিন্তাভাবনা যেভাবে আপনাকে নিয়ন্ত্রণ করে

চিন্তাধারা মানুষের জীবনে বেশ গুরুত্বপূর্ণ, রহস্যময় এবং জটিল বিষয়। আপনারা কি জানেন আপনাদের চিন্তাধারা আপনাদের জীবনের গতিপথ নির্ধারণ করে দেয়? অনেকেই বিষয়টি জানেন না। আশা করি এখন জানতে পেরেছেন।

চিন্তাধারা জীবনকে এগিয়ে দেয়, সমৃদ্ধ করে। আবার এই চিন্তাধারাই জীবনকে পিছিয়ে দেয়, ধ্বংস করে। অতএব, চিন্তাধারা নিয়ে মানুষের সতর্ক হওয়া জরুরী। তাহলে জীবন সুন্দর হয়ে উঠবে।

সাধারণভাবে চিন্তাভাবনার দু’টি ধারা রয়েছে। ইতিবাচক ও নেতিবাচক। আপনি কোনটা বেছে নেবেন, সেটা আপনার সিদ্ধান্ত ও পছন্দের ওপর নির্ভরশীল। ইতিবাচক চিন্তাভাবনা আপনাকে সুখী করে তুলবে, বিপরীতে নেতিবাচক চিন্তা অসুখী জীবন দান করবে। ডিসিশন ইজ ইওরস!

তাই এখনই নিজের চিন্তাধারা তথা চিন্তাভাবনার গতিপথ ঠিক করে নিন। আপনি ইতিবাচক পথে যাবেন নাকি নেতিবাচক, এসবের ওপর নির্ভর করে আপনার জীবনে অনেক কিছুই চলতে থাকবে। সুতরাং সাবধান!

যাহোক, চিন্তাধারাকে আপনি ইতিবাচক ও নেতিবাচক দিয়ে ভাগ না করে, ভুল ও সঠিক হিসেবেও বিবেচনা করতে পারেন। ইতিবাচক বা সঠিক চিন্তা কেমন হয়, নেতিবাচক বা ভুল চিন্তাই বা কেমন হয়? প্রশ্ন জাগতে পারে। নিচে বেশকিছু উদাহরণ তুলে ধরছি আমি। আশা করি আপনারা পরিস্কার ধারণা লাভ করতে সক্ষম হবেন।

ভুলঃ আমি সবসময়ই গরীব ছিলাম, থাকবো। আমি বড় হয়েছি সীমাবদ্ধতা এবং অভাবের মধ্যে।
সঠিকঃ আমি উত্তম কাজের মাধ্যমে জীবনে সমৃদ্ধি আনতে চাই।

ভুলঃ আমার সন্তানেরা আমার কথা শোনেই না!
সঠিকঃ আমি আমার সন্তানদেরকে শেখাবো সবাইকে শ্রদ্ধা করার বিষয়টি।

ভুলঃ আমি আমার পরিবার নিয়ে একেবারেই বিরক্ত। সবাই আমাকে ভুল বোঝে।
সঠিকঃ আমি আমার পরিবারকে ভালোবাসি। সবকিছুকে আমার মতো করে তারা দেখতে পারে না সত্য, আমি সেই প্রত্যাশাও করি না। আমি নিজের ইচ্ছে মতো চলি এবং তাদের জন্য ভালোবাসা বরাদ্দ রাখি।

ভুলঃ অন্যকে সন্তুষ্ট করতে করতে আমি অসুস্থ হয়ে যাচ্ছি।
সঠিকঃ আমি একটা পবিত্র উদ্দেশ্যের ওপর জীবনযাপন করি এবং আমি আমার মতো করেই সারাজীবন কাজ করবো।

ভুলঃ আমি আমার বাসস্থানকে ঘৃণা করি। এটা নিয়ে ভাবলে আমার শরীর শিরশির করে।
সঠিকঃ আমি মনে মনে আমার নতুন বাসস্থান দেখতে পাচ্ছি। আমি ছয় মাসের মধ্যে অমন কিছুর ব্যবস্থা করতে চাই।

ভুলঃ আমি যেই কাজটি করছি সেটা আমার একদম পছন্দ নয়। কেননা, এখানে আমাকে কোনো সম্মান দেয়া হচ্ছে না।
সঠিকঃ আমি আত্মপ্রচেষ্টার দ্বারা আমার স্বপ্নের মতো কাজ/চাকরির ব্যবস্থা করবো।

ভুলঃ আমার যথেষ্ট টাকা নেই।
সঠিকঃ আমি নিজের জীবনে সমৃদ্ধি আনার ইচ্ছে নিয়ে বাঁচি।

ভুলঃ আমার জীবনসঙ্গী খিটখিটে মেজাজের বিরক্তিকর একজন ব্যক্তি।
সঠিকঃ আমি আমার জীবনসঙ্গীর ভালো গুণের দিকে লক্ষ্যস্থির করবো।

ভুলঃ আমি আকর্ষনীয় একজন ব্যক্তি নই।
সঠিকঃ আমি সৃষ্টিকর্তার চোখে তার সৃষ্টির মধ্যে উৎকৃষ্ট।

ভুলঃ আমার যথেষ্ট শক্তি নেই।
সঠিকঃ আমি মহাবিশ্বের অফুরন্ত শক্তির উৎসের অংশ।

এমন হাজারও উদাহরণ পাওয়া সম্ভব সঠিক ও ভুল পথে চিন্তা করার বিষয়ে। বিভিন্ন জায়গা হতে বেশকিছু প্রসঙ্গের সঠিক ও ভুল চিন্তার স্বরূপ আমি আপনাদের সামনে তুলে ধরলাম। আশা করি আপনারা এসব বিবেচনা করে সামনের দিনগুলোতে অনেক দূর এগিয়ে যেতে পারবেন।

লেখকঃ ত্বাইরান আবির


Posted

in

by

Tags:

Comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *