উপলব্ধি ফিরে পাওয়া ব্যক্তির গল্প

একদা এক ব্যক্তি ছিলো। সে তার শশুর শাশুড়ীকে পছন্দ করতো না। তার ধারণা, তারা বাড়িতে বেশি ঝামেলা সৃষ্টি করছে। তাই সে ধারেকাছে থাকা একজন শিক্ষকের কাছে গেলো, যিনি ঐ এলাকায় খুব পরিচিত ছিলেন।

লোকটি তার কাছে গিয়ে বললো- ‘দয়া করে একটা পরামর্শ দিন। আমি আমার শশুর শাশুড়ীর ভার বহন করতে পারছি না। আমি আমার স্ত্রীকে খুব ভালোবাসি, কিন্তু তাদেরকে না! বাড়িতে তারা অনেক জায়গা দখল করে আছে।’ শিক্ষকটি তারপর বললেন- ‘আপনার কিছু মুরগী আছে?’

‘হ্যাঁ, আছে।’ জবাব দিলো লোকটি।

‘তাহলে সেগুলোকে আপনার বাড়ির ভেতর নিয়ে আসুন।’ লোকটি শিক্ষকের কথামতো কাজ করলো। তারপর পুনরায় তাঁর কাছে ফিরে এলো। শিক্ষকটি তাকে জিজ্ঞেস করলেন- ‘সমস্যা সমাধান হয়েছে?’

‘না, বরং আরো খারাপ হয়েছে।’ লোকটি বললো।
‘আচ্ছা, আপনার কোনো ভেড়া আছে?’
‘হ্যাঁ আছে।’
‘সব ভেড়াগুলোকে তাহলে বাড়ির ভেতর নিয়ে আসুন।’

লোকটি শিক্ষকের কথামতো কাজ করলো এবং আরেকদিন পুনরায় তার সাথে দেখা করতে এলো। শিক্ষক তাকে জিজ্ঞেস করলেন- ‘সমস্যা শেষ হলো?’

‘না, উল্টো আরো খারাপ হচ্ছে।”
‘আচ্ছা, তাহলে আপনার কি কিছু কুকুর আছে?’
‘হ্যাঁ, কয়েকটা আছে।’
‘এবার কুকুরগুলোকে বাড়ির ভেতর নিয়ে আসুন।’

অবশেষে, এটা করার পর লোকটি পুনরায় শিক্ষকের সাথে দেখা করতে আসলো। রাগান্বিত হয়ে সে বললো- ‘আমি আপনার কাছে এসেছিলাম আমার জীবনের সমস্যা সমাধানে। অথচ আপনি আরো খারাপ করে দিচ্ছেন! শিক্ষক তারপর বললেন- ‘এবার সব মুরগী, ভেড়া এবং কুকুরগুলোকে বাড়ির বাইরে বের করুন।’ লোকটি বাড়িতে গেলো এবং পুরো বাড়ি খালি করলো। দেখা গেলো এখন অনেক জায়গা খালি পড়ে আছে! লোকটি তখন আনন্দিত হয়ে ফের শিক্ষকের কাছে গেলো। বললো- ‘ধন্যবাদ, অনেক ধন্যবাদ। আপনি আমার সকল সমস্যা সমাধান করেছেন!’

এই গল্প থেকে আপনারা কী শিক্ষা পেলেন? এখানে আমাদের জন্য গুরুত্বপূর্ণ একটি শিক্ষা নিহিত রয়েছে। আমরা আমাদের কাছের মানুষদেরকে গুরুত্ব দিতে জানি না। আমরা মনে করি তারা আমাদের সব ধ্বংস করে ফেলছে। অথচ বাস্তবতা ভিন্ন।

আমাদের থেকে কোনকিছু মানুষ গ্রহণ করলে, এটা কখনোই আমাদের কমতি তৈরি করে না। বরং কতিপয় ক্ষেত্রে আমাদের সমৃদ্ধি আরও বেশি অর্জিত হয়। আজকে হয়তো আপনি নিজের অসহায় স্বজনদেরকে নিয়ে বিরক্ত। কিন্তু আপনার অর্জিত সম্পদ যদি কখনো কোন মানুষের কাজে না লাগে, তাহলে সেসব প্রাণীদের ভোগের বস্তু ব্যতীত আর কিছুই নয়, যা একেবারেই মূল্যহীন।

অতএব সময় থাকতেই সাবধান হোন। মানুষকে মূল্যায়ন করতে শিখুন, আশ্রয় দিতে শিখুন। এসবের ফলে আপনার অর্জনের কোন অংশই কমবে না। উপরন্তু, সৃষ্টিকর্তার দয়ায় এসব বেড়ে যাবে। তাই নিজেদেরকে সবার সাথে ভালো রাখার স্বার্থেই আমাদের উচিত সকল অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়ানো। এই কাজের কোন বিকল্প নেই।

স্টোরি এ্যারেঞ্জমেন্টঃ ত্বাইরান আবির
স্টোরি কালেকশনঃ ওয়েন ডায়ার মোটিভেশান’স


Posted

in

by

Tags:

Comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *