সফলতা পেতে সম্পর্কের মূল্যায়ন করুন

‘জীবনে সফলতা পেতে চাইলে সম্পর্ক ঠিক রাখুন।’- ত্বাইরান আবির

আমরা কার জন্য বাঁচি? প্রথমত, নিজের জন্য। দ্বিতীয়ত, মানুষের জন্য। আমাদের সুনির্দিষ্ট পরিমাণ চাহিদা পূরণ করার পর, অবশিষ্ট কিছু করতে পারলে আমরা মানুষের জন্যই করি (যদিও বর্তমান সময়টা ভিন্ন, মানুষের চাহিদার সীমা পরিসীমা নেই আজকাল)।

বাঁচার জন্য আমাদেরকে অবশ্যই সম্পর্কগুলোকে গুরুত্ব দিতে হবে। আরো স্পষ্ট করে বলতে গেলে, সুন্দরভাবে পৃথিবীতে বাঁচতে হলে সম্পর্কের মূল্যায়ন জরুরী। মানুষ মাত্রই পরস্পরের ওপর নির্ভরশীল। আমরা একা বাঁচতে পারি না। এমন কেউ নেই, যে বলতে পারবে, আমি একাই সব। একাই চলতে পারি।

এটা সত্যি যে, আপনি একা বসবাস করতে পারবেন, কিন্তু সুখী থাকতে হলে, আপনার সকল জাগতিক কাজ সম্পন্ন করতে হলে মানুষের সাহায্য লাগবে। মানুষ ছাড়া আপনি চলতে পারবেন না।

উদাহরণস্বরূপ, আপনার জামা একজন দর্জি বানিয়ে দেয়, আপনার জুতো সেলাই করে দেয় একজন মুচি, আপনাকে সরকারি সেবা দেয় একজন গভর্নমেন্ট অফিসার। জীবনের প্রয়োজনেই আপনাকে তাদের কাছে যেতে হবে।

এসব প্রয়োজনীয় গন্ডির বাইরেও আমাদের সম্পর্কের পরিচিত গন্ডি রয়েছে। পরিবার, আত্মীয়স্বজন, এমনকি নিজের একান্ত আপন মানুষের সাথে আপনার বোঝাপড়া ভালো রাখতে হবে। ভালো সম্পর্ক আমাদেরকে মানসিক স্বস্তি দেয়, সহায়তাপূর্ণ সহাবস্থান দেয়। ফলে আমরা পরস্পরের বিপদে এগিয়ে আসি, একে অন্যকে টেনে তুলি। এভাবেই সবাই ভালো থাকা যায়।

বস্তুত, সবার সাথে আপনার সম্পর্ক ভালো থাকলে আপনি নিজের পরিচিত গন্ডি ছাপিয়ে মানুষের জন্যেও কাজ করতে পারবেন। কেননা, তখন সবাইকে নিয়ে আপনার দুশ্চিন্তায় থাকতে হবে না, আপনার মনোযোগ সমস্যার মধ্যে আটকে থাকবে না। ফলে আপনি কাজ করতে পারবেন বৃহত্তর জনগোষ্ঠীর স্বার্থে।

এজন্যই বলা হয়ে থাকে, মানুষকে পরিবর্তন করার আগে নিজেকে ও নিজের আশেপাশের সবকিছু পরিবর্তন করুন। নিজেই ভালো না থাকলে আর কাকে ভালো রাখবেন? পারবেন না। পারলেও সেখানে সন্তুষ্টি থাকবে না। নিজেকে তাই ভালো রাখাটা গুরুত্বপূর্ণ।

এমন পরিবারে তাকান যেখানে বাবা-মায়ের মাঝে প্রচন্ড মিল রয়েছে, সম্পর্ক ভালো আছে, দেখবেন তারা পারিবারিকভাবে দিন দিন উন্নত হচ্ছে। আবার বিপরীত কোন ভঙ্গুর পরিবার ও বংশের দিকে তাকান, দেখবেন তাদের অধঃপতন নিশ্চিত হচ্ছে দিনের পর দিন।

কারণ, সম্পর্ক ভালো না থাকলে মন ভালো থাকবে না। মন ভালো না থাকলে আপনি ভেতর থেকেই হেরে যাবেন, মানসিক শক্তি পাবেন না, আগ্রহ পাবেন না জীবনের প্রতি। এমনকি দুশ্চিন্তা আপনার মনকে ব্যথিত করে দিয়ে অন্যান্য কাজ থেকে দূরে সরিয়ে রাখবে।

তাই সম্পর্কগুলোকে ভালো রাখুন। শুরুটা করুন পরিবার থেকে। নিজের একান্ত মানুষ, তারপর পরিবার ও আত্মীয়স্বজনকে নিয়ে ভালো থাকার চেষ্টা করুন। পরিচিত সার্কেল ভালো থাকলে বৃহত্তর সার্কেলে আপনিই বড় বড় কাজ করতে সক্ষম হবেন।

আর সবার সাথে সম্পর্ক ভালো রাখার উপায় হচ্ছে- ভালোবাসা। আপনার নিজেকে, পরিবার ও আত্মীয়স্বজনকে ভালোবাসুন। দেখবেন, ভালো থাকবেন ও মানুষকে ভালোবাসতে পারবেন। আপনার জন্য শুভকামনা রইলো।

 

লেখক- ত্বাইরান আবির


Posted

in

by

Tags:

Comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *