কল্পনা আপনাকে সফলতা এনে দেয়

যদি প্রশ্ন করা হয়, কল্পনাশক্তি মানুষকে কোথায় নিয়ে যেতে সক্ষম? তাহলে আমি নিশ্চিত অধিকাংশ মানুষই এটির সঠিক উত্তর দিতে পারবেন না। কল্পনাশক্তিকে সবাই ইতিবাচক আকারে নিতে পারে না, চিন্তা করে না। এমনকি কল্পনাবিলাসী মানুষকে পর্যন্ত কেউ কেউ ঠাট্টা করে থাকে। অথচ বাস্তবতা হচ্ছে পৃথিবীর যত বড় বড় আবিষ্কার রয়েছে, যত চিন্তাভাবনা দুনিয়াকে এগিয়ে নিয়েছে সেসবের পেছনে ভূমিকা পালন করেছিলো কল্পনাশক্তি। যেই মানুষের কল্পনাশক্তি যত শক্তিশালী, তার দ্বারা তত বেশি বড় বড় বিষয় নিয়ে কাজ করা সম্ভব।

কল্পনাশক্তির গুরুত্ব নিয়ে বলতে গিয়ে এমনকি আইনস্টাইন পর্যন্ত বলেছেন- ‘কল্পনা জ্ঞানের চেয়েও বেশি গুরুত্বপূর্ণ।’ আইনস্টাইনের মতো ব্যক্তিত্ব যখন কল্পনাশক্তি নিয়ে এমন কথা বলেন, তখন নিশ্চয়ই কারো কল্পনাশক্তির গুরুত্ব নিয়ে সন্দেহে থাকার যৌক্তিকতা নেই। প্রশ্ন জাগতে পারে, কল্পনা এত গুরুত্বপূর্ণ কেন? কল্পনা কি আপনাকে সফলতা এনে দিতে সক্ষম? অবশ্যই সক্ষম। চলুন তাহলে বিখ্যাত অভিনেতা জিম ক্যারির গল্পই জানা যাক, যার সফলতার পেছনে ভূমিকা ছিলো কল্পনাশক্তির।

আপনারা নিশ্চয়ই বিখ্যাত অভিনেতা জিম ক্যারির নাম শুনে থাকবেন। ১৯৯০ সালের কথা। অভিনেতা জিম ক্যারি তখনও মানুষের কাছে অতটা পরিচিত হয়ে ওঠেননি। অভিনয়ের পারিশ্রমিকের জন্য তিনি নিজেই তখন দশ মিলিয়ন ডলারের একটি চেক লিখেছিলেন, যদিও অভিনয় করে তিনি দশ মিলিয়ন ডলার পেতেন না। পরবর্তীতে তিনি এ ব্যাপারে ব্যাখ্যা করতে গিয়ে বলেছিলেন, এটা আসলে টাকার কথা চিন্তা করে লেখা হয়নি। তিনি আসলে জানতেন এত টাকা আয় করতে হলে তাকে বিশ্বের সবচাইতে প্রতিভাবান মানুষের সাথে এবং উন্নত ম্যাটেরিয়াল সমৃদ্ধ প্রােডাকশন হাউজের সাথে কাজ করতে হতাে।

জিম ক্যারি ‘এইস ভেন্টুরা’ এবং ‘দ্য মাস্ক’ মুভিতে আয় করেছিলেন প্রায় ৮ লাখ ডলার। পরে ১৯৮৪ সালে তাকে দেয়া হয়েছিল সাত মিলিয়ন ডলার। ১৯৯৫ সালে তা বেড়ে দাঁড়ায় আরাে বেশি এবং আজ তিনি প্রতিটি চলচ্চিত্রে অভিনয় করার জন্য ২০ মিলিয়ন ডলার আয় করেন।

জিম ক্যারির ‘পােস্টডেটেড চেক’ এক্সারসাইজ অবচেতন মনে অনুভূতি ও দায়বদ্ধতার সাথে আঁকড়ে থাকা লক্ষ্যকে বাস্তব রূপদানের একটি উদাহরণ। নিজের জীবনের লক্ষ্য নিয়ে চিন্তা করা এবং মনের মাঝে সেসব সম্পর্কে চিত্র অঙ্কন করার বিষয়টি আপনাকে অনেক দূর এগিয়ে নেবে। যখন
আপনি নিজের কল্পনাশক্তির মাধ্যম নিজের লক্ষ্য নিয়ে দারুণ উপস্থাপন করতে সক্ষম হবেন, তখন আপনার সফলতার আকার আরও বৃহৎ হবে।

আপনিও চাইলে জিম ক্যারির মতো চেক লিখে রাখতে পারেন। কে বলতে পারে, হয়তো পরবর্তী সময়ে আপনিও এত টাকা আয় করতে পারেন! কেননা, আপনাকে ঐ চেক প্রভাবিত করবে এবং আরো বেশি কাজ করার দিকে ধাবিত করবে!

 

লেখাঃ ত্বাইরান আবির

লেখক/অনুবাদক/কনটেন্ট রাইটার


Posted

in

by

Tags:

Comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *