সেকশন ৩৭৫

‘আইন তৈরি করা হয়েছে মানুষকে সুশৃঙ্খলভাবে পরিচালনা ও ন্যায়বিচার পেতে সাহায্য করার জন্য। কিন্তু কিছু কিছু ক্ষেত্রে আইনেরই ফায়দা তুলে নির্দোষকে দোষী করা হয়ে থাকে (যতটুকু না দোষ তার চাইতে বড় ক্লেইম করা হয়ে থাকে)। অবশ্য এই কাজ ঠিক কয়টি মামলায় কতটুকু করা হয়ে থাকে, সে সম্পর্কে বলাটা মুশকিল।’
যাইহোক, মূল প্রসঙ্গে ফিরে আসি। সেকশন ৩৭৫। বলিউডে নির্মিত বর্তমান সময়ের আলোচিত এক মুভি। পুরো মুভি জুড়ে আমি ওপরে যেই কথাটি বললাম, মূলত সেই বার্তাই দেয়া হয়েছে। বর্তমান সময়ে নারীদেরকে ন্যায় বিচার দেবার লক্ষ্যে বেশকিছু আইন করা হয়েছে।আইনগুলো অবশ্যই যৌক্তিক এবং কঠিন। এসকল আইনকে অবশ্যই সবার সম্মান জানানো উচিত। কিন্তু মাঝেমধ্যে এসব আইনকে ভায়োলেটেড করা হয়। আর এই কাজটি অনেক সময় আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর লোকেরা করে থাকে, কখনোবা ভিকটিম (বা ভিকটিম সেজে) আইনের ফায়দা লুটে মানুষের ওপর নিজের প্রতিশোধ নেবার জন্য করে থাকে। যার অগণিত উদাহরণ আমরা রোজ রোজ দেখতে পাই।
তেমনই এক বিষয় নিয়ে এই মুভি। মুভির কেন্দ্রীয় চরিত্র ফিল্মমেকার রোহান খুরানা, কস্টিউম এসিস্ট্যান্ট অঞ্জলি বসু, প্রসিকিউটর তরুণ সালুজা এবং হিরাল গান্ধী। সুপরিচিত ফিল্মমেকার রোহান খুরানার বিরুদ্ধে রেপের অভিযোগ আনা হয়। অভিযোগ আনে তারই শুটিং টিমের একজন কর্মী অঞ্জলি বসু। ভুক্তভোগী হয়ে তিনি তার বসের বিরুদ্ধে মামলা করেন। আর এই মামলায় দুই পক্ষের হয়ে লড়াই করেন যথাক্রমে ঝানু প্রসিকিউটর তরুণ সালুজা এবং তার বিপরীতে হিরাল গান্ধী। চলতে থাকে মামলা। জটিল কেইস। ভেতরে যুক্তির লড়াই, বাইরে অভিযুক্ত অপরাধীর বিরুদ্ধে প্রবল জন-আন্দোলন। অপরাধীকে মুক্ত করার কোন উপায়ই যেন আর বাকি নেই! তা সত্ত্বেও, সুদক্ষ প্রসিকিউটর তরুণ সালুজা তার দক্ষতা দিয়ে একের পর এক মিথ্যা কর্মের প্রমাণ হাজির করতে থাকেন বাদী পক্ষের বিরুদ্ধে। বাদী পক্ষের উকিলও কম যান না। তিনিও যথাসাধ্য লড়াই করেন। কিন্তু সবশেষে এই মামলার পরিণতি কী হয়? এই খেলায় কে জেতে? আইন নাকি আইনের অপব্যবহার? তা জানতে হলে অবশ্যই আপনাকে দেখতে হবে যুগোপযোগী এই মুভিটি। বাস্তবতার চরম সমন্বয় চিত্রায়িত করা হয়েছে সেকশন ৩৭৫ মুভিটিতে। তাই দেরি নয়, দেখে ফেলুন ‘সেকশন ৩৭৫’।
শেষ কথা, যত যাইহোক, আইন সুপ্রতিষ্ঠিত হোক। মানুষ ন্যায়বিচার পাক, তবে অবশ্যই আইনের সঠিক ব্যবহার করে। ঠিক যতটুকু অপরাধ, ততটুকুই সাজা দেয়া হোক।
IMDB Rating- 8.1/10
Personal Rating- 8/10

Posted

in

by

Tags:

Comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *