শ্রেষ্ঠ রচনাসমগ্র | ডাক্তার লুৎফর রহমান

আমাদের দেশের পাঠকদের অধিকাংশই সম্ভবত তরুণ। ‘সম্ভবত’ বললাম এই কারণে যে, পুরোপুরি সঠিক হিসেব পাওয়া কারো পক্ষে সম্ভব নয়। তবুও একটা অনুমান করা যায়। সেই আলোকেই ধরা যায় পাঠকদের বিশাল একটা শ্রেনী রয়েছে যারা তরুণ। মূলত ১৫-৩০ বছরের মধ্যে যে চক্র, বই পড়ার মধ্যে তারাই শীর্ষে। তো এই সময়টাতে আমি ব্যক্তিগতভাবে বিশ্বাস করি চরিত্র ও মূল্যবোধ গঠন করতে সাহায্য করবে এমন বইগুলো পড়া সবার জন্য জরুরী। বিনোদন নেবার জন্য অসংখ্য বই আছে। সেগুলো পড়তে অসুবিধা নেই। যার যেমন ভালো লাগা। তবে যেসব বই আমাদের যাপিত জীবনে ইতিবাচক প্রভাব ফেলতে সক্ষম সেই বইগুলো পড়া দরকার। এই ধরণের কিছু বই ই আমাদের জন্য ডাক্তার লুৎফর রহমান লিখে গেছেন। তার দুর্দান্ত সব প্রবন্ধ নিশ্চয়ই জীবনকে নতুন করে দেখতে শেখাবে, নতুন পথে চলতে শেখাবে। ডাক্তার লুৎফর রহমানের লেখাগুলোকে আমি মাস্টারপিসের তালিকাতেই রাখি। একটা দুঃখের বিষয় হলো, আমাদের দেশের পাঠকদের তালিকা হতে প্রবন্ধ ছিঁটকে যাচ্ছে দিনকে দিন। তবে প্রকৃতই যারা জ্ঞানলাভ ও মূল্যবোধ নিয়ে সচেতন এবং নিয়মিত পড়ুয়া তারা নিশ্চয়ই এই বইগুলো মিস করেন না। আরেকদিক থেকে বলতে গেলে, আমাদের দেশে হুজুগে পাঠকই বেশি। ‘হুজুগে’ বলার পক্ষে দুটো যুক্তি দেয়া যেতে পারে- তারা নিয়মিত রিডার নয়। একটা বই বের হলো, মার্কেটিং এর ফলে সেটা সাড়া জাগালো, ট্রেন্ড ফলো করে সেই বইটা কিনতে যায় এমন ব্যক্তিবর্গ তারা। সোজা কথায়, জ্ঞানলাভের জন্য নয় বরং ট্রেন্ড ফলো করা পাঠক তারা। এরূপ পাঠকেরা সম্ভবত হাতেগোনা(অবশ্যই নতুন ও মার্কেটার) দুই চারজনের বাইরে ভালো লেখকের নাম বলতে পারবে না। তাই ভালো বইয়ের সন্ধান দেবার কাজটি যারা নিয়মিত পাঠক আছেন তাদেরকেই করতে হবে। নতুনদেরকে সাজেস্ট করতে হবে মানসিকতা উন্নয়নে উপযুক্ত বইসমূহ। দিতে হবে বিশ্বসাহিত্যের ভালো বইগুলো। এই গেলো তাদের কথা। অন্য একটি পয়েন্ট থেকে বলা যায়, এদেশে বিশাল একটি পাঠকগোষ্ঠী তৈরি হয়নি। তাই বইয়ের ফিল্ডে নানা সমস্যা। যাইহোক, সেসব নিয়ে পরে বলা যাবে। আপাতত যাকে নিয়ে বলতে চাই- তিনি ডাক্তার লুৎফর রহমান।

আমার প্রিয় একজন প্রবন্ধকার তিনি। তার লেখা বইগুলো আমার দৃষ্টিভঙ্গি পরিবর্তনে অনেক ভূমিকা রেখেছে। শিখতে সহায়তা করেছে নতুন কিছু। মানসিকতা উন্নয়নেও গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছে। তাই একজন নিয়মিত পাঠক হিসেবে বলবো, আপনাদের মধ্যে যারা তরুণ রয়েছেন, তাদের জন্য গুরুত্বপূর্ণ বই হচ্ছে ডাক্তার লুৎফর রহমানের লেখা বইগুলো। বেশ কয়েকটি প্রবন্ধ গ্রন্থ লিখেছেন তিনি। তন্মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো-

* মানবজীবন
* মহৎ জীবন
* ধর্ম জীবন
* উন্নত জীবন
* উচ্চ জীবন
* যুবক জীবন

জীবন ছোট্ট। অল্প সময় নিয়ে এসেছি আমরা। নিজের সময়কে কাজে লাগানোর সর্বোত্তম মাধ্যম হচ্ছে জ্ঞান আহরণ ও নিজের বাস্তব জীবনে সেসব কাজে লাগানো। আর এজন্য বইয়ের তুলনা হয় না। আর বই হিসেবে ডাক্তার লুৎফর রহমানের লেখাগুলোও তুলনাহীন। কাজেই, সবাই পড়তে পারেন। নিশ্চয়ই খুব উপকৃত হবেন। আলাদা আলাদা বইগুলো পাবেন কিনা জানি না, কিন্তু তার শ্রেষ্ঠ রচনাসমগ্র পেতে পারেন। আমি ওটাই কিনেছিলাম। সুতরাং, বইগুলো সংগ্রহ করুন, পড়ুন। হ্যাপি রিডিং।

বইঃ শ্রেষ্ঠ রচনাসমগ্র (ডাক্তার লুৎফর রহমান)
প্রকাশকঃ নাঈম বুকস ইন্টারন্যাশনাল


Posted

in

by

Tags:

Comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *